খেলা ! খেলা !! খেলা !!!

আমর এই ছোট্ট জীবনে অনেক রকম খেলাই দেখেছি অনেক রকম খেলার কথার শুনেছি।

কিন্তু আজ আমি এমন এক খেলাই খেলতে নেমেছি, আমার জানামতে পৃখিবীতে সবচেয়ে কঠিন খেলা এটি। আমরা ক্রিকেট খেলি ২০ বা ৫০ ওভারে, খেলার সমাপ্তি ঘটে ৪/৫ ঘন্টায় , ফুটবলেও একই অবন্থা খেলা হয়, খেলার শেষে একদল জয়ী হয় । বিজয়ী দল উল্লাস করতে করতে বাসায় ফিরে যায়। মুছে যায় তাদের সকল ক্লান্তি সব কষ্ট।

বাকিটা পরে লিখবো......

(আজ ২৫/০৪/২০০৯ তারিখে সেই খেলাটি নিয়ে কিছু কথা লিখছি...)

সেদিনের সেই খেলাটির কথা মনে পড়লে চমকে উঠি, আবার কখনো একটু হাসি, মাঝে মাঝে মনটাও খারাপ হয়ে যায়।
আজ আবার লিখতে গিয়ে খুব মিস করছিলাম সেই দিনটি কে।

এ খেলাটিকে আমি এভাবে সঙ্গায়ীত করবো, এ খেলা যে একটি দুটি প্রানের খেলা, এ খেলা যেন দুজন দুজন কে মিসং করার খেলা। এ খেলা যে দুটি মনের অনুভূতি জানার খেলা।

তবে আমি এটুকু বলতে পারি, এ খেলায় বন্ধু তোমায় একটু বেশীই মিস করেছি।





 
 

সব কথার সব লেখার একটি শিরোনাম থাকে আজ আমি যে লেখা লিখতে বসছি তার কোন শিরোনাম নেই।


এসব একান্তই আমার মনের কথা মনের অগোছানো কিছু কথা, যে কথার আগা মাথা কেউ খুঝে পাবেনা হয়তো্। মানুষ অনেক আনন্দে যা করে আর কি । আজ আমার কি যে আনন্দ লাগছে আমি বলে বুঝাতে পারবো না।


অনেক দিন আগের একটি কথা আমায় প্রায়ই আঘাত করতো, আমি কেন ..................... ?
সবশেষে কাল জানতে পারলাম যে আমি জয় করতে পেরেছি। আমার এই জয় শুধু আমার জয়ই নয় তোমার ও জয়।
তবে কাল শুধু মুখ থেকে বলা, মন থেকে জেনে নিয়েছিলাম অনেক আগেই।

তোমার জন্য হৃদয়েরে কাননে হাজারো রঙ্গীন ফুলের আবাদ করছি, শুধুই তোমার জন্য। তোমাকে রাঙ্গাবো কৃষ্ণচড়ায়, তোমার গলে পড়াবো আমার বাগান থেকে তোলে আনা ফুলের মালা। তোমার হাতে তুলে দিবো এক গুচ্ছ ফুটন্ত লাল গোলাপ।


তুমি কি জানো তোমার জন্য আমার ডায়েরীর পাতা গুলো চেয়ে আছে অপলক দৃষ্টিতে। আমি অনেক আগে থেকেই সেই ডায়েরীতে লেখা শুরু করেছি তবে তুমি তা দেখেছো কি না জানিনা। তোমাকে নিয়ে আমি অনেক লিখবো, আমার প্রতিটি লেখায় থাকবে তুমি, প্রতিটি বাক্যে থাকবে তোমার কথা, প্রতিটি শব্দে থাকবে তোমার হাসি।


এতো সব আয়োজন কেন করবো জানতে চাও? কারন একটাই তুমি আমার অনেক অনেক ভাল একটা বন্ধু।


বন্ধুর জন্য বন্ধুর যা করার থাকে আমি সব করবো।

তুমি কেন যে বলো " আমি না থাকলে তুমি কি করবে?"
আমি বুঝিনা কেন যে তুমি এই প্রশ্নটা করো ।
আচ্ছা তুমিই বলো, ভাল মনের মানুষ কখনোই হারায়না, ওরা থাকে সবার মনে। বন্ধু তুমি কখনোই হারাবেনা, তোমাকে আমি সব সময় মনে রাখবো, সব সময়...


বন্ধু তুমি কি দেখতে পাও তোমার আমার বন্ধুত্বের একটি উজ্জ্বল ছবি আমার হৃদয় আয়নায়? তুমি হারিয়ে গেলেও আমার স্মৃতিতে থাকবে তুমি চিরকাল। যতোদিন আমি থাকবে এই পৃথিবীতে।

বন্ধু তোমার জন্য অনেক শুভ কামনা, আবার আরেক দিন লিখতে বসবো তোকে নিয়ে।

.

 
 

 

প্রতিটি "সকাল" যেন আমার কাছে একটি নবাগত নিষ্পাপ শিশু।
শিশুটি যেমন দিন, মাস , বছর পেরিয়ে বড় হতে থাকে আর দেখতে পাই আলো কিংবা আধারের পথ। কখনো খুজে পায় সুখ আবার আবার খুজে পায় সীমাহীন কষ্টের জীবন।

আমার জীবনের প্রতিটি সকাল ঠিক তেমনি, সূর্যোদয়ের পর পর শুরু হয় আমার একটি জীবন। ২৪ ঘন্টার এই জীবনে, আমি অনেক কিছু দেখি অনেক কিছু শিখি, মাঝে মাঝে আমার এই ছোট্ট জীবনটা কে অনেক ইনজয় করি। এই জীবনে আমি স্বপ্ন দেখি, অনেক কেউ স্বপ্ন দেখায় আবার কারো স্বপ্ন ভেঙ্গে দেই। এই জীবনে আসে কাল বৈশাখী ঝড় আবার কখনো বসন্ত।

রাতে বিছানায় গিয়ে আমার এই জীবনের হিসার কষি মাঝে মাঝে অনেক কান্না পায় সেদিনের সেই ছোট্ট জীবনটার জন্য। সেদিন থেকে শিক্ষা নিয়ে পরের দিনের নতুন জীবনের প্রত্যাশায় চোখ বন্ধ করি।


 
 

এখন অনেক রাত,
কোথাও কেউ জেগে নেই
অশ্রু যুগলে নেই ঘুমের ছায়া,
ঘুম যেন অভিমান করেছে
আজ আর দেখা মিলবে না,
র্নিঘুমে কেটে যাবে সারাটি রাত।
কারন শুধু একটাই,
আজ তুমি পাশে নেই।


তাই বসে পরলাম, ডায়েরীটা নিয়ে
তোমাকে নিয়ে লিখবো কবিতা
গান আর ছন্দের কল্পকথা।
কলমটা একটুও কালি দিচ্ছেনা আমায়,
ও যেন আজ রেগে আছে ।
কারন শুধু একটাই
তুমি পাশে নেই বলে।


দক্ষিনের জানালা খুলে দিয়েছি
দেখবো চাঁদের মায়বী মুখ।
চাঁদটা যেন বারবার
তোমার রুপের কাছে হার মানছে
আর লজ্জায় লুকাচ্ছে মেঘের আড়ালে।
এ দৃশ্য দেখে,
আমার হৃদয়ে আনন্দের জোয়ার বইছে
তবে এই জোয়ারের কোনই মূল্য নেই।
কারন শুধু একটাই
আজ তুমি পাশে নেই।





              

                  মিলান, ইতালী।
   রাত : ১: ৩৫ , তারিখ : ১০/১১/২০০৮ ।


 

 
 

অনেক দিন পর সাইটটিতে কাজ শুরু করলাম, অনেক ভাল লাগছে কাজ করতে পরে , এখন থেকে নিয়মিত লেখালেখি করবো ।

ধন্যবাদ সবাইকে...


 

    আমার ডায়েরী

    আমার মনের কিছু অগোছানো কথা লিখা হবে এই পেজে, ছোট্ট এই জীবনের অসংখ অভিজ্ঞতার কথা... ও কিছু আজাইরা পেচাল।

     

    লেখার শিরোনামে ক্লিক করে পুরো লেখাটি পড়ুন এবং জানান আপনার মন্তব্য বা অভিমত।






     



    আর্কাইভ

    February 2009
    January 2009

    লেখার বিষয়

    All

    RSS Feed